Thursday , 21 October 2021
ছোলা হোক ভিন্ন স্বাদে

ছোলা হোক ভিন্ন স্বাদে

লাইফস্টাইল ডেস্ক :
ইফতারে যতকিছুই থাক, ছোলা না থাকলে যেন একেবারেই চলে না। ইফতারে প্রতিদিনই ছোলা লাগে আমাদের। প্রতিদিনই যখন ছোলা খাচ্ছি, তখন এক স্বাদের না করে একটু ভিন্ন তো করাই যায়। একটু আলাদা রেসিপিতে রান্না করলেই ছোলায় আনা যায় ভিন্নতা। আজ জানবো ছোলার ভিন্ন কিছু রেসিপি:

টক মিষ্টি ছোলা ভুনা

উপকরণ

ছোলা সেদ্ধ ২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, আদা ও রসুন বাটা ১ চা চামচ, জিরাগুঁড়া ও ধনেগুঁড়া ১ চা চামচ, গরম মসলাগুঁড়া, টমেটো কুচি ১টি, তেল ৩ টেবিল চামচ, তেঁতুলের ক্বাথ ২ টেবিল চামচ, চিনি ১ চা চামচ, ধনেপাতা কুচি ও কাঁচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ ও লবণ স্বাদমতো।

প্রস্তুত প্রণালি

ছোলা সারারাত পানিতে ভিজিয়ে লবণ দিয়ে সিদ্ধ করুন। কড়াইতে সরিষার তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি হালকা বাদামি করে ভেজে টমেটো কুচি, বাটা ও গুঁড়া মসলা দিয়ে কষিয়ে নিন। মসলা কষানো হলে সিদ্ধ করা ছোলা কষিয়ে তেঁতুলের ক্বাথ, চিনি ও অল্প পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। মসলার সঙ্গে ছোলা মিশে এলে কাঁচামরিচ ও ধনেপাতা কুচি ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

ছোলার বিরিয়ানি

উপকরণ

পোলাও চাল আধা কেজি, ছোলা সিদ্ধ ২৫০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ও কাঁচা মরিচ ১ চা চামচ, তেজপাতা ২টি, এলাচ ৪টি, দারুচিনি ছোট ২ টুকরা, লবঙ্গ ৩টি, ঘি আধা কাপ, কাজুবাদাম ২ টেবিল চামচ, কাঠবাদাম ২ টেবিল চামচ, কিশমিশ ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা আধা কাপ।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. কড়াইয়ে ঘি গরম করে আদা, রসুন, লবণ, এলাচ, দারুচিনি, লবঙ্গ ও ছোলা দিয়ে হালকা করে ভেজে নিন।

২. এবার ঘিয়ে চাল ভেজে পোলাও রান্না করে নিন।

৩. পোলাও রান্না হয়ে গেলে ছোলা দিন।

৪. কাজু, কাঠবাদাম, কিশমিশ ও ঘি দিয়ে ঢেকে ১০ মিনিট দমে রাখুন।

৫. নামানোর আগে বেরেস্তা দিয়ে পরিবেশন করুন।

ছোলার সঙ্গে ফলের সালাদ

উপকরণ: কাবলি ছোলা ১ কাপ, পছন্দমতো ফলের কুচি ২ কাপ (আম, আপেল, আমড়া, পেয়ারা, আঙুর, আনারস, আনার ইত্যাদি) পানি ঝরিয়ে টকদই ২ কাপ, তেঁতুলের ক্বাথ ইচ্ছেমতো, লেবুর রস ২ টেবিলচামচ, লবণ স্বাদমতো, চিনি ১ টেবিল-চামচ, বিটলবণ ও সাদা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ইচ্ছেমতো, আলু বড় ১টি, গাজর মাঝারি ১টি, পেঁয়াজ মোটাকুচি আধা কাপ, পুদিনাপাতা বা ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল-চামচ, সরিষার তেল ১ টেবিল-চামচ, শসা ও ক্যাপসিকাম কুচি সিকি কাপ, চাট মসলা ২ টেবিল চামচ, বেসনের চিকন ঝুরি ভাজা আধা কাপ, টমেটো কুচি আধা কাপ।

প্রণালি

ছোলা পাঁচ-ছয় ঘণ্টা ভিজিয়ে সিকি কাপ ছোলা রেখে বাকি ছোলা বেশি পানিতে লবণ দিয়ে সিদ্ধ করুন। আলু ও গাজর আলাদা সিদ্ধ করে কিউব করে কেটে নিন। ফুটন্ত পানিতে এক মিনিট রেখে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার বাটিতে বেসনে ঝুরি ভাজা বাদে বাকি সব উপকরণ দিয়ে হাতে মাখিয়ে রেফ্রিজারেটরে কিছুক্ষণ রাখতে হবে। ফ্রিজ থেকে বের করে সার্ভিং ডিশে ঢেলে উপরে ঝুরি ভাজা ছিটিয়ে দিয়ে মজাদার কাবলি ছোলা ও ফলের সালাদ পরিবেশন করুন।

ছোলাচাট

উপকরণ

ছোলা আধা কেজি, আলু ১০০ গ্রাম (ছোট টুকরা), পেঁয়াজ ২৫০ গ্রাম (কিউব করা), কাঁচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, টমেটো কুচি ১ কাপ, আদা ও রসুন বাটা ১ চা-চামচ, হলুদ ও মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, ধনেপাতা কুচি আধা কাপ, টক তেঁতুল ১০০ গ্রাম (পানি, কাঁচামরিচ, ধনেপাতা কুচি এবং চাট মসলা, বিট লবণ, চিনি, লেবুর রস এবং সামান্য সাদা লবণসহ গোলানো টক পানি), ঝুরিভাজা দুই কাপ, তেল পরিমাণমতো, চাট মসলা ২ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি

ছোলা একরাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে লবণ দিয়ে সিদ্ধ করে পানি ফেলে দিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে সব বাটা ও গুঁড়া মসলা, টমেটো কুচি এবং স্বাদমতো লবণ দিয়ে মসলা ভালো করে কষিয়ে তাতে সিদ্ধ ছোলা দিয়ে আবার কষিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে রান্না করুন। ছোলা রান্না শেষদিকে তেঁতুল গোলানো পানি, কাঁচামরিচ ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে মাখা মাখা করে রান্না করে নামিয়ে তেঁতুলের পানি ও চাট মসলা দিয়ে মাখিয়ে তার সঙ্গে ঝুরিভাজাসহ পরিবেশন করুন।