Thursday , 21 October 2021
৭ম শ্রেণীর ছাত্রী নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকালেন

৭ম শ্রেণীর ছাত্রী নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকালেন

কুমিল্লা প্রতিনিধি:
নিজের বিয়ে ঠেকাতে পরিবারের সদস্যদের অনেক অনুরোধ করেও যখন কোন কাজ হয়নি তখন বাধ্য হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট ছুটে যায় স্কুল পড়–য়া ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রী। ইউএনও’র হস্তক্ষেপে অবশেষে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পায় সেই ছাত্রী। কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা কেবি স্কুল এন্ড কলেজের ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী চান্দলা গ্রামের নাসির উদ্দিন ও হোসনেআরা বেগমের মেয়ে তাসফিয়া সুলতানা (১৫) এর সাথে ২/৩ মাস আগে পাশের বাড়ির এক দিনমজুরের বিয়ে ঠিক হয়। দীঘদিন সে তার মা- বাবাকে অনুরোধ করার পরও তারা বিয়ের সিদ্ধান্তে অটল থাকায় নিরুপায় হয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় সে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জহিরুল হক এর নিকট ছুটে এসে তার বাল্য বিয়ের বিষয়টি খুলে বলে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাৎক্ষনিক চান্দলা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তবা আলী শাহীনকে মেয়েটির পরিবারের সাথে কথা বলতে বলে। নির্বাহী অফিসারের নির্দেশ মোতাবেক ইউপি চেয়ারম্যান পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে তারা মেয়েকে বিয়ে দেবেন না বলে প্রতিশ্রুতি দিলে মেয়েটি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে নিজ বাড়িতে ফিরে যায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, মেয়েটিকে কোন অবস্থাতেই তার পরিবার বিয়ে দিতে পারবে না। আমরা সার্বক্ষণিক তার পরিবারের সদস্যদের নজরে রেখেছি। যদি এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি ঘটে তবে মেয়েটির পরিবারের সদস্যদের মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজা দেয়া হবে। তিনি মেয়েটির সাহসী পদক্ষেপের প্রশংসা করে বলেন, বাল্য বিয়ে ঠেকাতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জনসচেতনতামূলক সভা করার কারণে শিক্ষার্থীরা সাহসী পদক্ষেপ নিতে পারছে। জনসচেতনতামূলক কর্মকান্ড ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে বলেও আশাবাদ প্রকাশ করেন তিনি।