নোয়াখালীর সেই গৃহবধূকে একাধিকবার ধ’র্ষ’ণ করেন দেলোয়ার

নিউজ ডেস্ক : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে অনৈ’তিক কাজের অ’পবা’দে দেলোয়ার মামা বা’হি’নীর নির্যা’তনের শি’কা’র ওই নারীকে (৩৬) অ’স্ত্রের মুখে জি’ম্মি করে একাধিকবার ধ’র্ষ’ণ করেছেন দেলোয়ার। শারীরিক সম্পর্কে রা’জি না হলে নিজ বাহিনীর সদস্যদের দিয়ে গ’ণধ”র্ষণের হু’মকিও দিতেন দেলোয়ার।

চা’ঞ্চ’ল্যকর এ ঘ’টনার ভি’কটিমের সঙ্গে কথা বলে এমন ত’থ্য জানিয়েছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক (অ’ভিযো’গ-তদ’ন্ত) আল আহমুদ ফয়জুল কবির। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ২টার দিকে নোয়াখালী চিফ জু’ডিশি’য়াল ম্যা’জিস্ট্রে’ট আদালতের অডিটরিয়ামে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ ত’থ্য জানান তিনি।

আল আহমুদ ফয়জুল কবির জানান, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় বেগমগঞ্জ থানায় তিনিসহ তাদের তদ’ন্ত কমিটির সদস্যরা নির্যা’তিতা ওই গৃহবধূর সাথে কথা বলেন। গৃহবধূ তাদের কাছে অ’ভিযো’গ করেন, গত এক বছর আগে দেলোয়ার তার ঘরে ঢুকে প্রথমে তাকে অ’স্ত্রের মুখে জি’ম্মি করে। এসময় দেলোয়ার তার সাথে যৌ’ন সম্পর্কে লি’প্ত হতে বলেন। তিনি চিৎকারের চেষ্টা করলে দেলোয়ার তাকে হ’ত্যা ও তার দলের লোকজন দিয়ে গ’ণধ’র্ষণের ভ’য় দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্কে লি’প্ত হয়।

 

 

এর কিছুদিন পর দেলোয়ার ও তার সহযোগী কালাম ওই নারীকে তার বাড়ি থেকে বের করে একটি নৌকা যোগে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী একটি বিলে নিয়ে যায়। সেখানে দেলোয়ার ও কালাম তাকে গ’ণধ’র্ষণের চেষ্টা করলে হাতে পায়ে ধ’রে কালামের হাত থেকে র’ক্ষা পেলেও দেলোয়ার তাকে নৌকার মধ্যে আবারও ধ’র্ষ’ণ করেন। এরপর থেকে দেলোয়ার তার সঙ্গে একা’ধিকবার শারী’রিক সম্পর্ক করতে ব্য’র্থ হয়ে ক্ষি’প্ত হয়ে ওঠেন।

তিনি আর জানান, ”এ ঘ’টনায় নির্যা’তিতা বা’দী হয়ে আদালতে একটি ধ’র্ষ’ণ মামলা দায়ের করবেন। মামলাটি পরিচালনা করবেন অ্যাডভোকেট জাফর উদ্দিন বাবুল। আদালতে ২২ ধা’রায় পুনরায় ভি’কটি’মের জবানব’ন্দি রেক’র্ড করা হবে। আমাদের তদ’ন্ত শেষে চূড়ান্ত রিপোর্ট চেয়ারম্যান মানবাধিকারের কাছে জমা দেয়া হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় মানবাধিকারের উপ-পরিচালক গাজী সালা উদ্দিন, নোয়াখালী জেলা মহিলা ও শিশু বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কামরুন নাহার।