মিলনমেলায় উৎসবমুখর কুষ্টিয়ার পুলিশ লাইন স্কুল

শুক্রবার ভোর থেকেই কুষ্টিয়া শহরের প্রাণকেন্দ্র মজমপুরে গাড়ির সারি। তারা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছেন।উদ্দেশ্য বন্ধুদের সাথে মিলনমেলায় অংশ নেওয়া।

সকাল সাড়ে ৯ টা থেকে পুলিশ লাইন্সের গেটে দেখা মিললো বিশাল লাইন। টোকন সংগ্রহ করে গেটপাশ নিয়ে ভেতরে প্রবেশের দৃশ্য।

খুলনা বিভাগীয় এসএসসি ব্যাচ ১৯৯৩ শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনীর আয়োজন। আর এ আয়োজনকে শুধু আয়োজন বললেই ভুল হবে, বলা যায় মহাযজ্ঞ।

খুলনা বিভাগীয় এসএসসি ব্যাচ ১৯৯৩ শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনীর আয়োজন

পুলিশ লাইনের বিশাল মাঠে সামিয়ানা দিয়ে প্যান্ডেল সাজানো। আলাদা আলাদা বুথে চা, কফি, স্ন্যাকস রাখা এবং বসার ব্যবস্থা রয়েছে। নাস্তার প্যাকেট, উপহার আর স্মরণিকা প্রাপ্তির আনন্দে আত্মহারা হয়ে যাচ্ছিলেন বন্ধুরা।

দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এসআই টুটুলসহ কণ্ঠশিল্পী লিজা মাতাবেন পুরো অনুষ্ঠান

স্মৃতির ডানায় ভর করে সবাই যেন ফিরে গিয়েছিলেন ছাত্রজীবনে। হইহুল্লোড় আর দুষ্টুমিতে বারবার ফিরে আসছিল গত হয়ে যাওয়া সব আড্ডার টুকরো টুকরো গল্প।

গেটের সামনে এবং মাঠের মধ্যে সেলফি তুলতে ব্যস্ত এক বন্ধুদের সাথে আরেক বন্ধু।

ইঞ্জিনিয়ার শাওন তার এক বন্ধু ইশতিয়াককে অনেকদিন পর দেখা পেয়ে আবেগে জড়িয়ে ধরেন। বলছিলেন অনেকদিন পর আবার একসাথে। এ মেলবন্ধনে যন অটুট থাকে এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে।

কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ সুপারের সাথে বার্তা২৪.কম এর হেড অব মার্কেটিং সিরাজুল ইসলাম সুমন 

সিরাজুল ইসলাম সুমন। তিনি চট্টগ্রামের বাসিন্দা। তবে কর্মসূত্রে দীর্ঘদিন ঢাকায় থাকেন। বার্তা২৪.কম এর হেড অব মার্কেটিং এ চাকরি করেন।

তিনি তিনিও ছুটে এসেছেন এই অনুষ্ঠানে। জুয়েল নামের এক বন্ধুর সাথে তার দেখা হলো। বন্ধুকে জড়িয়ে ধরে তিনি আবেগে আপ্লুত হয়ে বলে উঠল বন্ধু কি খবর অনেকদিন তোর সাথে দেখা হয়নি। সেদিন সবাই স্মৃতির ঝাঁপি মেলে ধরেছিলেন। স্কুলের সেদিনের স্মৃতি কখনোই ভুলবেন না। এ যেন অন্যরকম অনুভূতি।

স্কুলের গেটের সামনে দাঁড়িয়ে ফ্রেমবন্দী হলেন অনেকেই

দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এসআই টুটুলসহ কণ্ঠশিল্পী লিজা মাতাবেন পুরো অনুষ্ঠান।

সকাল সাড়ে এগারোটায়  বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন আয়োজক কমিটির সভাপতি ও কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত।