Breaking News
Home / বাংলা নিউজ / ২০২১ সালেই দেশে আসবে হা’ইড্রোজেনচালি’ত কার

২০২১ সালেই দেশে আসবে হা’ইড্রোজেনচালি’ত কার



অনলাইন ডেস্ক:

ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি – ‌২০২১ সালের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র থেকে হা’ইড্রোজেন চালি’ত কার যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে আনা হবে। জনসচেতনতা ও প্রদর্শনের জন্য প্রকল্পে সংযোজিত হবে হা’ইড্রোজেন রি-ফুয়েলি’ং স্টেশন ও হা’ইড্রোজেন ফুয়েলসেল কার।

পর্যায়ক্রমে এর প্রসারতা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হবে।
সোমবার(২২ ফেব্রুয়ারি) নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশে (আইইবি’) টেকসই ও নবায়নযোগ্য কর্তৃপক্ষ (স্রেডা) আয়োজিত ‘প্রোসপেক্ট অ’্যান্ড চ্যালেঞ্জেস অ’ব হা’ইড্রোজেন ফুয়েল ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক কর্মশালায় প্রধান অ’তিথির বক্তব্যে বি’জ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আনোয়ার হোসেন একথা বলেন।

কর্মশালায় স্রেডার চেয়ারম্যান মোহা’ম্মদ আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে বি’শেষ অ’তিথি ছিলেন বি’দ্যুৎ বি’ভাগের সচিব হা’বি’বুর রহমা’ন ও বাংলাদেশ বি’জ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বি’সিএসআইআর) চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আফতাব আলী শেখ। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হা’ইড্রোজেন এনার্জি গবেষণাগার স্থাপন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. মো. আবদুস সালাম।

সিনিয়র সচিব আনোয়ার হোসেন বলেন, বি’শ্ব প্রযুক্তিতে এগিয়ে যাচ্ছে, আমরা পিছিয়ে থাকবো কেন? গ্যাস বা কয়লা একদিন ফুরিয়ে যাবে। আমা’দের বি’কল্প চিন্তা-ভাবনা করতে হবে। দক্ষিণ কোরয়িা হা’ইড্রোজেন জ্বালানিতে অ’নেক এগিয়ে গেছে। জার্মা’নিও অ’নেক এগিয়ে গেছে। সারা পৃথিবী এটা’ নিয়ে কাজ করছে। এক বছরের মধ্যেই হা’ইড্রোজেন কার আসবে। ফসিল ফুয়েল অ’র্থাৎ কয়লা, পেট্রোল, ডিজেল যত বেশি পোড়ানো হয় কার্বন ততই বাড়ে।



‘হা’ইড্রোজেন জ্বালানি পরিবেশবান্ধব। বায়ু ও পানি থেকে এই জ্বালানি তৈরি করা যায়। যতদিন হিমা’লয় পর্বত আছে ততদিন দেশে পানির অ’ভাব হবে না। হা’ইড্রোজেন জ্বালানি দিয়ে কিছু গাড়ি ঘোড়া চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছি। ’

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে পর্যাপ্ত পরিমা’ণ পানি ও বায়োমা’স আছে। পানি ও বায়োমা’সকে কাঁচামা’ল হিসেবে সফল ব্যবহা’রে অ’সংখ্য ইউনিট হা’ইড্রোজেন উৎপাদন সম্ভব। বাংলাদেশে কাচাঁমা’ল হিসেবে এ দু’টির সফল ব্যবহা’রের মা’ধ্যমে একটি মজবুত জ্বালানি ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা অ’ত্যন্ত সম্ভাবনাময়।

‘সীমিত আকারের হা’ইড্রোজেন উৎপাদনের জন্য পাইলট প্ল্যান্ট স্থাপন, হা’ইড্রোজেন মজুদের জন্য ইনোভেটিভ পদার্থের সংশ্লেষ বা উন্নয়ন এবং হা’ইড্রোজেন ফুয়েল সেল প্রস্তুতকরণের পাশাপাশি প্রযুক্তি সংশ্লি’ষ্ট দক্ষ জনবল তৈরি করা চলমা’ন হা’ইড্রোজেন এনার্জি গবেষণাগার স্থাপন প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। ’

সূত্র: বাংলানিউজ
এন এ/ ২২ ফেব্রুয়ারি