Home / বাংলা নিউজ / ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, সোয়া ৬ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক |

ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, সোয়া ৬ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক |


অনলাইন ডেস্ক:

আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার সোয়া ৬ ঘণ্টা পর আবারও দক্ষিণাঞ্চল খুলনার সঙ্গে ঢাকা ও উত্তরাঞ্চলের মধ্যে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। 

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রেলওয়ে পাকশী বিভাগের ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর স্টেশনের সিগন্যাল পয়েন্টে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হলে ট্রেন চলাচল সাময়িক বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় এই রুটে চলাচল করা চারটি আন্তঃনগর ট্রেন বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পড়ে। তবে দুর্ঘটনায় ট্রেনযাত্রীদের মধ্যে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। 

রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) সৌমিক শাওন কবির রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  

রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপকের কার্যালয় সূত্র জানায়, সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী ৭১৬ নম্বর আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঈশ্বরদী-খুলনা রেলরুটের ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশনের ১নং লাইনে যাচ্ছিল। কিন্তু স্টেশনে প্রবেশের মুখে সিগন্যাল পয়েন্টে ট্রেনের পেছনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়। 

সূত্রটি আরো জানায়, পরে রেলওয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পরামর্শে লাইনচ্যুত বগি দুটি দুর্ঘটনাস্থলে রেখেই ট্রেনটিকে নির্ধারিত স্টেশন খুলনায় প্রেরণ করা হয়। সন্ধ্যায় দুর্ঘটনাকবলিত ট্রেনের বগি উদ্ধারে ঈশ্বরদী লোকোসেড থেকে রিলিফ ট্রেন পাঠানো হয়। প্রায় সোয়া ৬ ঘণ্টা প্রচেষ্টার পর রাত ১১টার ৪০ মিনিটে লাইনচ্যুত বগি দুটিকে উদ্ধার ও ক্ষতিগ্রস্ত লাইন মেরামত করা হয়। এরপর আটকেপড়া রাজশাহী থেকে ছেড়ে যাওয়া খুলনাগামী আন্তঃনগর কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে ছেড়ে আসা চিলাহাটিগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ও খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এই ঘটনাটি সিগন্যালে দায়িত্ব পালনকারীর ভুলের কারণে হয়ে থাকতে পারে বলেও সূত্রটি ধারণা করছে।



রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) সৌমিক শাওন কবির জানান, ঘটনাটি তদন্তের জন্য পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ভারপ্রাপ্ত পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আনোয়ার হোসেনকে আহবায়ক করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী চার কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ হয়েছে। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। 

এদিকে এক দিন (সোমবার) সকালে সিরাজগঞ্জ স্টেশন থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটির ইঞ্জিন রুম থেকে চাবি (রিভার্সার হ্যান্ডেল) হারানোর ঘটনা ঘটে। এতে কয়েক শ যাত্রী চরম ভোগান্তির শিকার হন। নির্ধারিত সময়ের চেয়ে চার ঘণ্টা পর বিশেষ ব্যবস্থার মাধ্যমে ট্রেনটিকে ঢাকায় পাঠানো হয়। এভাবে প্রতিনিয়ত রেল রুটে সমস্যা সৃষ্টি করা হচ্ছে। বিষয়গুলো দায়সাড়াভাবে তদন্ত না করে দোষীদের শাস্তির আওতায় এনে সমস্যা সমাধানের জোর দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ট্রেনযাত্রীরা।

-অনলাইন ডেস্ক