Saturday , 27 February 2021
Home / বাংলা নিউজ / ‘খেতাব কেড়ে নিয়ে জিয়াকে জনগণের মন থেকে মুছে ফেলা যাবে না’ |

‘খেতাব কেড়ে নিয়ে জিয়াকে জনগণের মন থেকে মুছে ফেলা যাবে না’ |



অনলাইন ডেস্ক:

সরকার নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে শহীদ জিয়াউর রহমানের খেতাব কেড়ে নিতে চায় দাবি করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘সরকার কুকীর্তি করে, গণতন্ত্র হত্যা করে মাফিয়া তন্ত্র কায়েম করেছে। এখন নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ জিয়ার খেতাব কেড়ে নেয়ার চক্রান্ত করছে। আমি বলতে চাই, খেতাব কেড়ে নিয়ে জিয়াকে জনগণের মন থেকে মুছে ফেলা যাবে না।’

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জিয়াউর রহমানের রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)।

রিজভী বলেন, আজকে দেশে অনেক তন্ত্র আছে। আওয়ামী লীগের মিথ্যা তন্ত্র আছে। কিন্তু গণতন্ত্র নেই। আজকে গণতন্ত্র রক্ষার স্বার্থে আমাদের এই আন্দোলন। গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে অন্যায়ভাবে কারাগারে রাখার পর এখন গৃহবন্দি করে রেখা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ বিকৃত রুচিতে ভুগছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের একজন মন্ত্রী বলেছেন, সরকারের কুকীর্তি নিয়ে আল জাজিরার রিপোর্টের পেছনে বিএনপি-জামায়াতের হাত আছে। আসলে তাদেরকে জিজ্ঞেস করলে বলবে, বাংলাদেশে করোনা মহামারির পেছনেও বিএনপি-জামায়াতের হাত রয়েছে।’



বিএনপির এই নেতা বলেন, আগামীতে জনগণ তাদের বিচার করবে যারা ক্যাসিনো করে ব্যাংকের হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। জনগণ এখন সেই প্রস্তুতি নিচ্ছে।

রিজভী বলেন, নেয়াখালীতে ওবায়দুল কাদের দুটি গ্রুপ তৈরি করে রেখেছেন। সেখানে তার ভাই মির্জা কাদেরের আন্দোলনে নিরীহ সাংবাদিক মুজাক্কিরকে প্রাণ দিতে হলো। এই হত্যাকাণ্ডের দায় প্রধানমন্ত্রীর। এই হত্যার দায় ওবায়দুল কাদেরের। তবুও তাদের কোনো অনুশোচনা নেই। ওদের সমস্ত লজ্জা-শরম ধুয়ে-মুছে নিচে ফেলে দিয়েছে।

ড্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ডা. হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আবদুস সালামের পরিচালনায় একে অংশ নেন ড্যাবের সহ-সভাপতি ডা. সিরাজুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ ডা. জহিরুল ইসলাম শাকিল, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ডা. মেহেদী হাসান, যুগ্ম মহাসচিব ডা. শাহ মুহাম্মদ আমান উল্লাহ, ডা. এরফানুল হক সিদ্দিকী, ডা. শেখ ফরহাদ প্রমুখ।

-অনলাইন ডেস্ক