পানছড়িতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সঙ্গে পাখির সখ্যতা |

পানছড়িতে এক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলেছে কয়েকটি পাখি। করোনার মহামারিতে লকডাউনের আঠারো মাসের বন্ধ থাকায় বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধনে সাজিয়ে রাখা ফুলের টবগুলো দখলে নেয় পাখিরা। সাতটি টবে বাসা বেঁধে ডিম থেকে কয়েকবার ছানাও ফুটিয়েছে। কভিড-১৯ এর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে বিদ্যালয় খোলা হলেও বিদ্যালয় ছাড়েনি পাখির দল। বীরদর্পে শিক্ষার্থীদের মাথার উপর দিয়ে উড়াল মেরে বাসায় ঢুকে ডিমে তা দেয় নির্ভয়ে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সাথে তাদের দারুণ সখ্যতা। 

বর্তমানে তিনটি টব ও টবের পাশে গাছের ডালে একটিসহ মোট চারটি বাসা রয়েছে। পাখিদের নিরাপত্তা নিয়ে শিক্ষার্থীরা সর্বদা সজাগ। পানছড়ির পাখিপ্রেমী এই বিদ্যালয়ের নাম নালকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ফুলের টবে সাজানো ও বিশালাকার কৃষ্ণচুড়ার ছায়াতলে এই দৃষ্টিনন্দন বিদ্যালয়টির অবস্থান। 
পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ম্রাচিং মারমা, জীবন চাকমা, হিমেল চাকমা ও শুভাষ চাকমা জানায়, পাখিরা আমাদের বন্ধু। বাসায় বসে ডিম তা দেয়ার দৃশ্য আমরা সবাই উপভোগ করি। 

বিদ্যালয়ের শিক্ষক ঝুমি চাকমা, ভেলেন্তিনা চাকমা, স্বর্ণালী চাকমা জানান, টবে থাকা পাখির বাসাগুলো বিদ্যালয়ের সৌন্দর্যকে দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। পাখিদের ফুড়ুৎ ফুড়ুৎ আসা-যাওয়া সবাই দারুণভাবে উপভোগ করি। 

বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক অমর সিংহ ত্রিপুরা জানান, দীর্ঘ বন্ধে বিদ্যালয়ে সাজানো ফুলের টবগুলোতে পাখিরা বাসা বাঁধে। বিদ্যালয় খোলার পরও ডিমসহ চারাটি বাসা টবে ঝুলছে। পাখিদের বিচরণ দারুণ উপভোগ্য। পাখিরা যাতে নির্ভয়ে বাসায়-যাওয়া করতে পারে সে ব্যাপারে আমরা সবাই সচেতন।


-Kalerkantho