“নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছিলেন”

“নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছিলেন”

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ারস অ্যাসোসিয়েশন (এনজেডসিপিএ) অবশেষে খোলসা করল তড়িঘড়ি করে পাকিস্তান সফর বাতিলের কারণ। তারা জানিয়েছেন, পাকিস্তানে খেললে ক্রিকেটারদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট জানান, নিতান্ত নিরুপায় হয়েই তারা পাকিস্তান ত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়দেরকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল বলেও জানান হোয়াইট। তবে কী ধরনের হুমকি দেওয়া হয়েছিল সেই বিষয়ে তিনি কিছুই খোলসা করেননি। সেই বিস্তারিত জানালো নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ারস অ্যাসোসিয়েশন।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ারস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হিথ মিলস জানিয়েছেন তাদের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে তারা এই হুমকি পেয়েছিলেন। ফলে প্রাণনাশের হুমকি নিয়ে পাকিস্তানে খেলা চালিয়ে যাওয়ার মতো ঝুঁকি তারা নেননি।

মিলসের ভাষায়, “এই সফরে যাওয়ার কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই কয়েকজন খেলোয়াড়কে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। সচরাচর এমনটি ঘটে না তবে সত্যিই তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং আরও কিছু মাধ্যমে হুমকি পেয়েছিলেন। আমাদের বিশ্লেষকরা এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখেন এবং তারা বলেন যে এগুলো গুরুতর কিছু না।”

রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা

বিশ্লেষকরা গুরুতর কিছু না বলার পরও সফর বাতিলকে অবশ্য অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া মানতে নারাজ মিলস। তিনি বলেন, “আমার মনে হয় না যে আমরা অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছি। আমরা এটা নির্দ্বিধায় বলতে পারি যে পাকিস্তানের নিরাপত্তাব্যবস্থা আমাদেরকে খুবই আশ্বস্ত ও মুগ্ধ করেছিল। মাঠ, হোটেল এবং বিমানবন্দরে যাওয়ার পথ সবকিছুই নিরাপদ ছিল। কিন্তু হুমকি মাথায় নিয়েও আমরা সেখানে থাকতে পারতাম না।”

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ারস অ্যাসোসিয়েশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা সবসময়ই তাদের কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় এবং সেইজন্য এই বিষয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) যেকোনো সিদ্ধান্তে তারা সমর্থন দিবে। তাদের ভাষ্যমতে,

“ক্রিকেটার ও তাদের পরিবারের জন্য সহজ সময় ছিল না এবং এটি স্বস্তির যে তারা সবাই এখন নিরাপদে আছে। আমরা বুঝেছি যে এভাবে তাদের দেশ ত্যাগ করা পাকিস্তানের জনগণকে খুবই হতাশ করেছে। যাইহোক, খেলোয়াড়দের নিরাপত্তাই আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার এবং এই বিষয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) সিদ্ধান্তকে আমরা পূর্ণ সমর্থন জানাই।”

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডের এমন সিদ্ধান্তে হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়েছেন খোদ পাকিস্তানের ক্রিকেটাররাও। তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজেদের দেশকে সম্পূর্ণ নিরাপদ দাবি করে নিউজিল্যান্ডের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন। নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা সিরিজ বাতিল করলেও দেশে ফিরে যাওয়ার সময় একই নিরাপত্তার আদলে একই রাস্তা ব্যবহার করা নিয়েও টিপ্পনি কেটেছেন মোহাম্মদ হাফিজ।

পাকিস্তানকে সমর্থন জানিয়েছেন বার্তা দিয়েছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কার বেশ কয়েকজন সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা। তাদের মধ্যে রয়েছেন শ্রীলঙ্কার টেস্ট অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে, সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমানে ধারাভাষ্যকার ফারভিজ মাহরুফ, রোশান আবেসিংহে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি ও বিশ্বখ্যাত ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইলসহ প্রমুখ।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।


সূত্র: বিডিক্রিকটাইম