বোর্ডের দরবারে অমীমাংসিতই থাকল সুজন-সাকিব ইস্যু

বোর্ডের দরবারে অমীমাংসিতই থাকল সুজন-সাকিব ইস্যু

আম্পায়ারের সাথে অশোভন আচরণের জন্য সাকিব আল হাসান নিষেধাজ্ঞা ও জরিমানার মুখোমুখি হলেও বোর্ডের দরবারে চাপা পড়ে গেছে সাকিব আল হাসান ও খালেদ মাহমুদ সুজনের ইস্যু। প্রমাণের মত কোনো তথ্য না পাওয়ায় সাবেক ও বর্তমান এই দুই ক্রিকেটারের দ্বন্দ্ব নিয়ে ঘাটেনি বোর্ড।

শুক্রবার (১২ জুন) ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) আবাহনী লিমিটেড ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের মধ্যকার হাই ভোল্টেজ ম্যাচে উত্তাপ ছড়ায় সাকিবের আগ্রাসী মেজাজ। স্ট্যাম্প ভেঙে অশালীন ভাষা ও অঙ্গভঙ্গি করতে করতে মাঠ ছেড়ে যাওয়া সাকিবকে নিবৃত করতে এগিয়ে আসেন সুজন।

Also Read – সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মাত্রা ‘কমানো হয়নি’, দাবি সিসিডিএমের

তবে এ সময় সুজনের সাথেও ঝগড়া বেঁধে যায় সাকিবের। ঝগড়ায় সময় দুইজনকেই দেখা গেছে আগ্রাসী ভূমিকায়। সিসিডিএম ম্যাচ রেফারির সুপারিশ অনুযায়ী সাকিবকে তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা ও ৫ লাখ টাকা জরিমানা করেছে, তবে শাস্তির ক্ষেত্রে বিবেচ্য ছিল না সাকিব-সুজন ইস্যু।

এই ইস্যু নিয়ে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণ হিসেবে বিসিবির দাবি, সাকিব ও সুজন ম্যাচের সময়ই নিজেদের মধ্যে মীমাংসা করে নেওয়ায় এবং প্রমাণের মত তথ্যাদি না থাকায় সুজন বা সাকিবের পরস্পরের প্রতি ক্ষেপে যাওয়ার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়নি।

বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘এটা ম্যাচ রিপোর্টের মধ্যে নেই। কারণ এটা নিয়ে কারও কোনো বক্তব্য আসেনি। ভিডিও ছিল, কিন্তু অডিও কিছু ছিল না। যার কারণে এটা প্রমাণ করা খুব কঠিন। দুই দিক থেকেই কিন্তু ছিল। সাকিবের থেকে দেখা গেছে ওরকম একটা ইঙ্গিত ছিল। খালেদ মাহমুদেরটাও আমরা দেখেছি। কিন্তু আমাদের কাছে ওরকম কোনো অডিও ছিল না দেখে আমরা প্রমাণ করতে পারিনি। আর যেহেতু তারা দুইজন নিজেদের মধ্যে মীমাংসা করে নিয়েছে। সেজন্যই এই ইস্যুটা এখানে আসেনি।’

সূত্র: বিডিক্রিকটাইম