Thursday , 21 October 2021
ফুলের সাম্রাজ্যে ব্যস্ত সময় পার করছে ফুলচাষিরা

ফুলের সাম্রাজ্যে ব্যস্ত সময় পার করছে ফুলচাষিরা

যশোর প্রতিনিধি : ফুলের সাম্রাজ্য হিসাবে পরিচিত যশোরের গদখালী এখন ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে। ফ্রেবুয়ারী এলেই যেন উৎসবে মেতে ওঠে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালীর ফুল বাজার। বসন্ত উৎসব, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস এবং একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে মহাব্যস্ত সময় পার করেছন ফুলের রাজধানী খ্যাত যশোরের গদখালির চাষিরা।
ফুলের ক্ষেত থেকে সময়মত পর্যাপ্ত ফুল পেতে গাছ পরিচর্যায ব্যস্ত তারা। এই ফুল চাষের সঙ্গে সরাসরি জড়িত প্রায় ৫ হাজার কৃষক।
এবারের মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূল থাকলে এ তিন দিবসে ৩০-৩৫ কোটি টাকার ফুল বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এ এলাকার ফুলচাষিরা দিন রাত ফুল ও ফুলগাছের পরিচর্যা করছেন। আগামি ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে গদখালির চাষিরা বসন্ত বরণ, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ফুল বাজারে সরবরাহ করবে। ইতিমধ্যে প্রতিদিন সূর্য্য ওঠার আগেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পাইকার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা ফুল কিনতে ভিড় জমাচ্ছেন।সরেজমিনে গদখালী বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এ অঞ্চলের শত শত কৃষক তাদের উৎপাদিত ফুল বিক্রির জন্য গদখালী পাইকারি বাজারে নিয়ে আসেন। ব্যবসায়ী ও ফঁড়িয়ারা এই ফুল ক্রয় করে ঢাকা, চট্রগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী সহ সড়ক পথে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করছেন। যশোরের সদর, ঝিকরগাছা ও শার্শা উপজেলার প্রায় ৪০টি গ্রামে এখন বিভিন্ন জাতের ফুলচাষ করছেন কৃষকরা। এসব এলাকায় রজনীগন্ধা, গোলাপ, গাঁধা, গ্লাডিওলাস, জারবেরা, জিপসি, ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকা, ক্যালেন্ডলা, লিলিয়াস সহ নানা জাতের ফুল চাষ হচ্ছে।
আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি পয়লা বসন্ত, পরদিন ভালোবাসা দিবস। এ দু’টি দিবসে প্রিয়জনের মন রাঙাতে মুখিয়ে আছেন দেশের তরুণ-তরুণীসহ সব বয়সীরা। প্রিয়জনের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশে ফুলই শ্রেষ্ঠ। মানুষের মনের খোরাক মেটাতে গদখালীতে চাষিরা এখন দিনরাত পরিশ্রম করছেন। ফুল দেরিতে ফোটাতে গোলাপের কুঁড়িতে পরিয়ে রাখছেন ‘ক্যাপ’। ফলে বসন্ত দিবস, ভালোবাসা দিবস আর ২১ ফেব্রুয়ারিতে ফুল বাজারে দেওয়া নিশ্চিত হবে। বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে গোলাপ, গাঁধা, রজনীগন্ধা, গ্ল্যাডিওলাসসহ নানা রঙের ফুল। চোখ ধাঁধানো এই সৌন্দর্য কেবল মানুসের হৃদয়ে অনাবিল প্রশান্তিই আনে না, ফুল চাষ সমৃদ্ধিও এনেছে অনেকের জীবনে। ফুলেল স্নিগ্ধতায় এখন ব্যস্ত সময় কাটছে তাদের। গদখালী ফুল চাষি কল্যাণ সমিতির সভাপতি জানান, বসন্ত বরণ ও ভালবাসা দিবসকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে বাজার জমে উঠেছে। তিনি আরও বলেন, যশোরের গদখালী থেকে দেশের ৪৮টি জেলায় ফুল সরবরাহ করা হচ্ছে।
ফুলচাষি মজিদ বলেন, সারাদেশে বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে যে ফুল বেচা-কেনা হয় তার অন্তত ৭০ শতাংশই যশোরে উৎপাদিত ফুল। তবে এবারের ভালোবাসা দিবসে ফুলের যেমন উৎপাদন বেশি। তেমনি চাহিদা অন্য যেকোনো বারের তুলনায় বেশি। তাই শহর-নগরের ব্যবসায়ীদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা ফুলের অর্ডার নিচ্ছি। স্থানীয় ক্ষুদ্র পাইকারী ব্যবসায়ীরা জানান, সামনে ভ্যালেনটাইনে ডে’তে ফুল বিক্রি বেশি হবে। বাজারে জারবেরা, গোলাপ, রজনীগন্ধ ফুলের চাহিদা বেশি। কৃষকরাও দাম ভালো পাবে। ফুল চাষি ও ব্যবসায়ি আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অর্ডার পাচ্ছি। তাদের চাহিদা মতো ফুল সরবরাহ করার জন্য প্রস্তুত আছি।